আপনি কি Income Tax নিয়ে চিন্তায় আছেন?  সারা বছরের রোজগারের একটা মোটা অংশ সরকার রিটার্ন নেয়।

যদি এমন হয়  আপনাকে কোন আয়কর না দিতেই হলো না, কেমন হবে?

নিশ্চয় আপনার আনন্দ হবে। কেননা আপনি সেই ২% জনগণের মধ্যে পড়ছেন, যারা income tax দেন। আপনি ভাবছেন আপনার করের টাকায় সরকার চলছে। জনগণের অন্যান্য অংশের কোন ভূমিকা নেই।

  কার্যত ধারণাটা সম্পূর্ণ সত্য নয়। কত রকম ট্যাক্স আছে, জানেন কি? বিভিন্ন ধরণের Taxএর মধ্যে প্রধান দুটি ভাগ হল-  Direct ও Indirect Tax.

একজন গরীব দিনমজুরও সরকারের কোষাগারে tax দেন। সাধারণ গরীব মানুষও GST, VAT, Excise duty-এর মাধ্যমে সরকারকে Tax দেন।    

এখন প্রশ্ন ইনকাম ট্যাক্স তুলে দিলে ভারতের পক্ষে তা কেমন হবে? ঘটতে পারে এক সাংঘাতিক পরিবর্তন। কিন্তু তা কি সত্যি জনসাধারণের পক্ষে হিতকর হবে।

আসুন দেখা যাক...

প্রতিটি ব্যক্তির ইনকাম ট্যাক্স এর জন্য যে টাকা সরকারকে জমা দিচ্ছেন তা দিয়ে আয়করদাতারা অন্য ধরনের খরচা করতে পারবেন। এতেও সরকারের পক্ষে সেই দ্রব্যাদি অথবা সেবার উপর থেকে কর আদায় করতে পারবে।

যে সমস্ত ব্যক্তি ইনকাম ট্যাক্স ফাঁকি দেওয়ার জন্য জন্য কালোটাকা হিসেবে বিভিন্ন অর্থ বিভিন্নভাবে, বিভিন্ন স্থানে আবদ্ধ করে রাখেন, লুকোনো পদ্ধতিতে ব্ল্যাকমানি লুকিয়ে রাখবেন না।

ইনকাম ট্যাক্স সংগ্ৰহ করার জন্য সরকার যে সমস্ত অর্গানাইজেশন, ব্যবস্থাপনা ব্যবহার করছেন এবং সেই অরগানাইজেশন এবং ব্যবস্থাপনার জন্য যে পরিমাণ টাকা খরচা করছেন, সেই টাকা খরচা করার কোনো প্রয়োজন হবে না।

তাহলে সরকারের Revenue আসবে কোথা থেকে? এ এক বিশাল ক্ষতি পূরণ হবে কোথা থেকে?  

জিএসটি বৃদ্ধির মাধ্যমে কোষাগার বৃদ্ধি পেতে পারে।

জিনিসপত্রের এবং সেবার মূল্য বৃদ্ধি পাবে, সে ক্ষেত্রে একজন গরিবের পক্ষে সে দ্রব্য বা সেবা নেওয়া সাংঘাতিক ভাবে দুরূহ কাজ হতে পারে।

তাহলে? 

জিএসটি বৃদ্ধির উল্টো ঘটনা ঘটতে পারে অর্থাৎ জিএসটি প্রয়োগের ক্ষেত্রে জিনিসপত্রের মূল্য বৃদ্ধি না পেয়ে হ্রাস পেতে পারে। যেমন- পেট্রোপণ্যের উপর জিএসটি চালু হলে পেট্রোপণ্যের মূল্য কমে যাবে।

আরেকটি উপায়-